• +88-01875-864-699
  • nokrekitofficial@gmail.com
  • Opening: 11:00am - 10:00pm

Call Now(+88) 0130-157-5095

Send Messagenokrekitofficial@gmail.com

Our LocationHouse 4, Road 13, Block J, Baridhara, Dhaka, BD

BranchHouse NITI, 5/F Saheb Quarter, Kanchijhuli, Mymensingh, BD

Gazipur BranchK.N.B Bazar, Bashakair, Fulbaria, Kaliakair, Gazipur

গ্রাফিক্স ডিজাইন নাকি ওয়েব ডিজাইন? কোনটি শিখব?

একটি অতি সাধারণ এবং দ্বিধাময় যৌক্তিক প্রশ্ন হচ্ছে আমি কি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখব নাকি ওয়েব ডিজাইন শিখব। বস্তুত পক্ষ্যে দুটোর অন্তর্নিহিত তাৎপর্য বিবেচনায় এক অর্থে কাউকে সরাসরি বলা যাচ্ছেনা, আপনি গ্রাফিক্স শিখেন কিংবা আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখেন। একটি বিস্তারিত ব্যাখ্যার মাধ্যমে আজকে স্পষ্ট ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করব কোনটা শেখা উচিত কিংবা দুটোই যদি শিখতে চান তবে কোনটি আগে শুরু করা উচিত।
প্রথমে নিজেকে প্রশ্ন করতে হবে আপনি কি করতে ভালবাসেন। আপনি যদি নিত্যনতুন কিছু সৃষ্টিশীল কাজ করতে ভালবাসেন ও চিন্তার গভীরতা থাকে তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইন শুরু করতে পারেন। অন্যদিকে যদি কোডিং প্রোগ্রামিং ও টেকনিক্যাল বিষয়ে যদি আগ্রহ থাকে তবে ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারেন।
উভয় দিক বিবেচনা করে নিচে আরো বিস্তারিত আলোচনা করা হলোঃ
১) পৃথিবীর সকল কিছুই গ্রাফিক্স ডিজাইন নির্ভর। জন্মলগ্ন থেকেই গ্রাফিক্স ডিজাইনের সাথে আমাদের জীবন ওতপ্রতভাবে জড়িত। মৌলিক চাহিদার যে খাদ্যদ্রব্য, বস্ত্র ও শিক্ষার সামগ্রী রয়েছে সকল কিছুর মাঝেই গ্রাফিক্স ডিজাইন নিবিড়ভাবে জড়িত। আরো বিস্তারিত বললে, প্রতিটি খাবারের প্যাকেটজাত ডিজাইন থেকে শুরু করে বই পুস্তক, জামাকাপড় ও নিত্যনৈমিত্তিক ব্যবহার্য জিনিসের সকল ক্ষেত্রেই ডিজাইন অত্যন্ত নিবিড়ভাবে জড়িত এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন না শিখলেও আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়মিত ব্যবহার করছেন।
(২) নতুন কিছু ভাবতে ও প্রয়োগ করতে যদি ভালবাসেন এবং কালার ও লেখাগুলোর মাধ্যমে মনের মাধুরী মিশিয়ে সুন্দর ক্যানভাস বানাতে চাইলে গ্রাফিক্স হতে পারে প্রথম পছন্দ।
(৩) খ্রিস্টপূর্ব থেকে আজ অবধি ছোট ব্যবসা থেকে শুরু করে বৃহদায়তন প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে গ্রাফিক্সের কাজ প্রচুর হয় এবং ভবিষ্যতেও এর চাহিদা শেষ হবার নয় কখনই।
(৪) করোনা পরিস্থিতে এখন বর্তমান ডিজিটাল যুগে সকল ওয়েব ডিজাইন কিংবা ডিজিটাল মার্কেটীং এর এডস ব্যানার প্লাটুন ইত্যাদি কাজ গ্রাফিক্স ডিজাইনার দিয়ে করা হয়। এর চাহিদা উত্তোরোত্তর বেড়েই চলেছে।
৫) ওয়েবসাইট ডিজাইনের ক্ষেত্রে গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের কালার কনসেপ্ট জ্ঞান খুবই সহায়ক। এছাড়া ওয়েব ব্যানার, ইউ আই ডিজাইন এর ক্ষেত্রে গ্রাফিক্স ডিজাইন ছাড়া ওয়েব ডিজাইন কল্পনাই করা যায়না। গ্রাফিক্স ছাড়া ওয়েব ডিজাইন অচল।
৬) গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কোনো কোম্পানির জন্য কাজ করলে অনেক ক্লায়েন্ট তাদের কোম্পানির জন্য ওয়েবসাইট ডিজাইনের জন্য ওয়েব ডিজাইনারও খুঁজে থাকেন। এক্ষেত্রে গ্রাফিক্সের পাশাপাশি ওয়েব পারাটাও প্লাস পয়েন্ট হিসেবে বিবেচিত হয়।
৭) গ্রাফিক্স ডিজাইন একটি সমুদ্রের ন্যায় বিশাল। এখানে বিভিন্ন ধরনের প্রজেক্ট ভিত্তিক কাজ শিখেও উপার্জন করা যায়। এজন্য এত সময়ের প্রয়োজন হয়না।
গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো এই, অনলাইন কাজের ফাউন্ডেশন হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা বিশ্বব্যাপী এবং ভাল করে কাজ জানলে কোনো গ্রাফিক্স ডিজাইনার বেকার থাকেনা কখনো। প্রযুক্তির পরিবর্তনে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বিভিন্ন সেক্টরে পরিবর্তন লক্ষ্যণীয় হয়। পরিবর্তন গ্রহণ করে নিজেকে আপডেটেড রেখে এগিয়ে যেতে পারলে গ্রাফিক্স ডিজাইন হবে বিশ্বনন্দিত ক্যারিয়ার আপনার জন্য।
১) ওয়েব ডিজাইন বলতে মূলত ওয়েব সার্ভারে বিভিন্ন পেইজ সুন্দর করে বিভিন্ন কন্টেনটস (ছবি, ভিডীও, অডিও, ইনফোগ্রাফিক্স, আর্টিকেলস) সুসজ্জিত করে রাখাকে বুঝায়।
( ২) আমাদের মোবাইলে কিংবা কম্পিউটারের বিভিন্ন ব্রাউজারে আমরা যেসব ওয়েব সাইট ব্রাউজ করি তা ওয়েব ডিজাইনাররা তৈরি করেন এবং এর চাহিদাও গ্রাফিক্স ডিজাইন এর মত ব্যাপক। বর্তমানে প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসায়ের জন্য ওয়েব সাইট ক্রিয়েট করে..দিন দিন ওয়েব ডিজাইনের চাহিদা ব্যাপক হচ্ছে। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে মানুষজন গৃহবন্দী হয়ে উঠেছে, তাই তাদের প্রয়োজনীয় যত সামগ্রী লাগে সেটা ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই কেনাকাটা করছে। এখন যে পরিস্থিতি হয়েছে সেটা স্বাভাবিক হতে প্রায় ২-৩ বছর লেগে যাবে গবেষকদের মতে, তাই এই সময়ে ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে পারলেও একটা প্লাস পয়েন্ট।
(৩) ওয়েব ডিজাইনের অনেকগুলো সেকশন আছে একটার পর একটা
শিখতে হবে, এবং প্রচুর সময় দিতে হবে.. নির্দিষ্ট পরিকল্পনা ছাডা আগানো প্রায় অসম্ভব .
৪) এই ডিজিটাল যুগে স্কুল কলেজ থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি কোম্পানিই এখন কোম্পানির ওয়েবসাইটের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছেন। এক্ষেত্রে ওয়েব ডিজাইনারদের চাহিদাও দিন দিন ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।
৫) পূর্ণাংগ ওয়েব ডিজাইন শিখতে বিভিন্ন প্লাটফর্ম (যেমনHtml, CSS, Java, Python, Php, Bootstrap Etc) ভাল করে আয়ত্ত্বে নিয়ে আসতে প্রচুর সময় দিতে হবে এবং প্রব্লেম সলুশনের মানষিকতা থাকতে হবে।
৬) বিভিন্ন লোকাল কোম্পানির জন্য কাজের পাশাপাশি গ্লোবালিও
একজন ওয়েব ডিজাইনার কাজ করতে পারেন।
৭) ভাল মানের ওয়েব ডিজাইন করতে হলে গ্রাফিক্স ডিজাইন না
জানলেও অন্তত কালার কনসেপ্ট জানা অত্যন্ত জরুরি। তবে ওয়েব ডিজাইনকে কোনো কোন ক্ষেত্রে গ্রাফিক্স ডিজাইনের অংশও বলা হয়, বিশেষভাবে ইউ আই ডিজাইনের ক্ষেত্রে।
বর্তমান প্রেক্ষাপটে গ্রাফিক্স ডিজাইন ও ওয়েব ডিজাইন, উভয়ের চাহিদাই বিশ্বব্যাপী টপলিস্টে আছে।
আপনি যা করতে ভালবাসেন তাই শুরু করতে পারেন।
যেহেতু নিত্যনৈমিত্তিক ব্যবহার্য থেকে শুরু করে জীবনের সকল ক্ষেত্রেই মৌলিক চাহিদার মত করে গ্রাফিক্স ডিজাইন আমাদের জীবনের সাথে নিবিড়ভাবে জড়িত এবং বাস্তবিক ভেল্যু ওয়েব ডিজাইনের চেয়ে দৃশ্যমান, সেহেতু গ্লোবাল কাজ না পেলেও প্রথমে লোকাল কাজ পাওয়াটাও সহজ হয় গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের জন্য। শুধু দরকার নিজের সুন্দর প্রফেশনাল ডিজাইনের মাধ্যমে নিজের দক্ষতা প্রকাশ করা এবং নিজেকে ব্রান্ড হিসেবে গড়ে তোলা।
শেষাংশে বলতে চাই, আপনার প্রবল আগ্রহ যেখানে এবং যা করতে আপনি পছন্দ করেন আপনি তাই শিখবেন। আর যদি দুটোই শেখার মনস্থির করে থাকেন, তবে গ্রাফিক্স ডিজাইন ওয়েব ডিজাইন কম্বো  দিয়েই শুরু করতে পারেন। আপনার জন্য শুভকামনা।